spot_img
রবিবার, এপ্রিল ২১, ২০২৪
spot_img

জামপুর ইউপি আ.লীগের কর্মী সম্মেলনে দু’গ্রুপের দফায় দফায় সংঘর্ষে আহত ১০

spot_img

জামপুর ইউপি আ.লীগের কর্মী সম্মেলনে দু’গ্রুপের দফায় দফায় সংঘর্ষে আহত ১০

লাইভ সোনারগাঁও ডেস্ক:

আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের কর্মী সম্মেলনে বর্তমান ও সাবেক চেয়ারম্যান সমর্থকদের মধ্যে দু-গ্রুপের দফায় দফায় সংঘর্ষে অন্তত ১০ জন আহত হয়েছেন।

তবে এ সংঘর্ষের ঘটনায় আহত চার জনের অবস্থা খুবই গুরুতর। এরা হলেন, শিকদার জিহাদ, শিকদার তাসফি, মাহমুদ রহমান রাব্বী, ইমন। এছাড়া কাউসার, পলাশ, শাহরিয়ার, তানভীরসহ আরও দুই জন মারধরে আহত হয়েছেন। তারা জামপুর ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান হামীম শিকদার শিপলুর সমর্থক। তাদেরকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালসহ বিভিন্ন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে।

গত রবিবার (৮ জানুয়ারি) সন্ধ্যায় নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁও উপজেলার জামপুর জামপুর ইউনিয়নের মালিপাড়া প্রাথমিক বিদ্যালয় মাঠে এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।

প্রত্যক্ষদর্শী ও স্থানীয় নেতাকর্মী জানান, গত রবিবার বিকালে জামপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের কর্মী সম্মেলনের আয়োজন করা হয়। এতে জামপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি হুমায়ুন কবির ভূঁইয়ার সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, সোনারগাঁও উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি অ্যাডভোকেট সামসুল ইসলাম ভূঁইয়া।

এ সময় প্রধান বক্তা সোনারগাঁও আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সাবেক সংসদ সদস্য আবদুল্লাহ আল কায়সার হাসনাত বক্তব্য দিচ্ছিলেন। মঞ্চে উপস্থিত সমর্থকরা ¯েøাগান দেয়াকে কেন্দ্র করে, জামপুর ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান হামীম শিকদার শিপলুর এক সমর্থককে মঞ্চের পেছনে ডেকে নিয়ে যায়। সেখানে তাকে মারধর করে জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক যুগ্ম সম্পাদক ডা. আবু জাফর চৌধুরী বিরু ও বর্তমান ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান হুমায়ুন কবির ভূঁইয়ার সমর্ধকরা মিলে।

এতে করে সাবেক চেয়ারম্যান হামীম শিকদার শিপলুর লোকজন উত্তেজিত হয়ে লাঠিসোঁটা নিয়ে বের হলে উভয় পক্ষের মধ্যে সংর্ঘষ শুরু হয়। এ সময় পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে নেতাকর্মীদের ছত্রভঙ্গ করে দেয়। এরপরও দফায় দফায় চলে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া শুরু হয়। সংঘর্ষের ঘটনায় কর্মী সম্মেলনের চেয়ার, টেবিল ও মঞ্চ ভাঙচুর করা হয়। এ সময় সাবেক চেয়ারম্যান শিপলুর সমর্থক অন্তত ১০ জন আহত হয়েছেন। পরে নেতাকর্মীরা তড়িঘড়ি করে সম্মেলন শেষ করেন।

এ ব্যাপারে জামপুর ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান হামীম শিকদার শিপলু বলেন, ‘জামপুর ইউনিয়নের কর্মী সম্মেলনে নেতাকর্মী নিয়ে শান্তিপূর্ণভাবে অংশগ্রহণ করেছি। আমি মঞ্চে থাকা অবস্থায় কায়সার ভাই (সোনারগাঁও আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল্লাহ আল কায়সার হাসনাত) বক্তব্য দিচ্ছিলেন। এ সময় আমার অনুসারীদের মঞ্চের পেছনে নিয়ে মারধর করে জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক যুগ্ম সম্পাদক ডা. আবু জাফর চৌধুরী বিরুর লোকজন। এ সময় আমার ছেলেদের (অনুসারীদের) ছুরিকাঘাতসহ মারধর করা হয়। এতে ১০ জন আহত হয়েছে। মূলত পূর্ব বিরোধের জের ধরে জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক যুগ্ম সম্পাদক ডা. আবু জাফর চৌধুরী বিরুর লোকজন তাদের উপর হামলা করেছে। এই ঘটনায় আইনি ব্যবস্থা নেয়া হবে।’

হামলার বিষয়টি অস্বীকার করে জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক যুগ্ম সম্পাদক ডা. আবু জাফর চৌধুরী বিরু বলেন, ‘আমার নেতাকর্মী ও অনুসারীরা এই হামলায় জড়িত নয়। আমি জেলা আওয়ামী লীগের রাজনীতি করি, আর শিপলু হচ্ছে ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান ছিল। আমি কেন তার সঙ্গে বিরোধে জড়াবো।

সোনারগাঁও থানার পরিদর্শক (তদন্ত) আহসান উল্লাহ জানান, সংঘর্ষের সময় পুলিশ উভয় পক্ষের লোকজনকে ছত্রভঙ্গ করে দেওয়া হয়। তবে কতজন আহত হয়েছে তা নিশ্চিত না। এ ঘটনায় মামলা হবে।

spot_img

সম্পরকিত প্রবন্ধ

সাম্প্রতিক প্রবন্ধসমূহ

spot_img
spot_img